Error
  • JUser: :_load: Unable to load user with ID: 140
  • JUser: :_load: Unable to load user with ID: 133
  • JUser: :_load: Unable to load user with ID: 136
  • JUser: :_load: Unable to load user with ID: 138
03 Sep 2015

দেশীয় খেজুর হারিয়ে যাচ্ছে

font size decrease font size decrease font size increase font size increase font size

 নওগাঁর পোরশা থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে দেশীয় খেজুর। এক সময় পোরশা উপজেলায় ব্যাপক খেজুর গাছ দেখা গেলেও বর্তমানে আর তেমন দেখা যায় না এ ফলের গাছটি। বাজারে আম জাম লিচুসহ বিভিন্ন ধরনের রসালো ফলে ভর্তি থাকলেও দেখা মেলেনা দেশীয় খেজুর। দেশীয় খেজুরের খুব বেশি কদর না থাকলেও এ ফল নানা রকম পুষ্টিগুনে সমৃদ্ধ।

পুষ্টিবিদদের মতে, দেশীয় খেজুরের মধ্যে রয়েছে ক্যালসিয়াম, সালফার, আয়রন, পটাসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ কপার, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন বি-৬, ফলিক এ্যসিড, আমিষ ও শর্করা। এছাড়া খেজুরটি খেতেও অনেক সুস্বাদু। এক সময় পথে-প্রান্তরে ছিল সারি সারি খেজুর গাছ। ঐ মৌসুমে যেদিকে চোখ যেত দেখা যেত গাছে ঝুলে থাকা খেজুরের থোকা। জ্যৈষ্ঠের শেষে থেকে শ্রাবন মাস পর্যন্ত গাছ থেকে খেজুরের ছড়ি সংগ্রহের উৎসবে মেতে উঠত গ্রামের কিশোর-কিশোরীরা। বর্তমানে দিনদিন গ্রামগঞ্জ থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে দেশীয় খেজুর। খেজুর গাছে শীতের প্রথম ভাগে ফল ধরে।

পরে ফুল থেকে পরিপক্ক হতে সময় লাগে প্রায় চার মাস। আষাড়ের প্রথম ভাগে পাকতে শুরু করে। সবুজ রং থেকে গাঢ় হলদে হলে পরিপক্ক হয়। থোকা কেটে পানিতে তিন থেকে চার ঘন্টা ভিজিয়ে রাখলে খেজুর পেকে যায়। এ খেজুরে প্রচুর পরিমাণ বিভিন্ন স্বাস্থ্যকর উপাদান রয়েছে। খেজুর হর্টের রোগীদের জন্য বেশ উপকারী। খেজুর রক্ত উৎপাদনে সহায়তা করে। এছাড়াও ফলটি হজমবর্ধক। এবং পাকস্থলি ও যকৃতের শক্তি বাড়ায়। খেজুরের বীজ রোগ নিরাময়, খেজুর ফুলের পরাগরেণু পুরুষের বন্ধ্যত্ব দূর করে শুক্রাণু বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

আবহাওয়া ও জলবায়ুগত কারনে দিনদিন খেজুর গাছ মরে যাচ্ছে। যে কারনে আর পূর্বেরমত এ গাছ দেখা যায় না। এছাড়া ইটভাটায় খেজুর গাছ জ্বালানী হিসাবে ব্যবহার বৃদ্দির কারনেও কমতে শুরু করেছে উপকারী এ গাছটি।

Rate this item
(0 votes)

সর্বাধিক পঠিত