03 Jul 2017

ব্যবসায়ীকে ক্রস ফায়ারে হত্যার হুমকি|

font size decrease font size decrease font size increase font size increase font size

 

 

 

ব্যবসায়ীকে ক্রস ফায়ারে হত্যার হুমকি|

                     অন্তহীন অপরাধরে নায়ক

কে এই এ এস পি আলামগীর কোথায় তার ক্ষমতার জোর ??

 

স্টাফ রপর্িোটার :পুলশিরে এক সনিয়ির এএসপরি বরিুদ্ধে অভযিোগরে শষে নইে।

তার বরিুদ্ধে একরে পর এক অভযিোগ প্রমাণতি হওয়ার পরওে তনিি রয়ছেনে বহাল

তবয়িত।ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাকে চাকরি থকেে ইস্তফা দয়োর জন্য

র্কমকমশিনে চঠিি দলিে র্দীঘ ছয় মাস পর  অবশষেে পুলশিরে সনিয়ির এএসপি

আলমগীর হোসনেকে বরখাস্ত করতে মত দয়িছেে বাংলাদশে সরকারি র্কম কমশিন। তার

বরিুদ্ধে আনা অভযিোগরে প্রমাণ পাওয়ার পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়রে

নর্দিশেে সরকারি র্কমচারী (শৃংখলা ও আপলি) বধিমিালা ১৯৮৫-এর ৪(৩)(ড)ি

মোতাবকে তাকে বরখাস্ত করতে মতামত প্রদান করনে।

গত ২১/১০/ ১৫ ইং বুধবার র্কম কমশিনরে মতামতরে প্রক্ষেতিে ব্যবস্থা

গ্রহণরে জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লষ্টি দফতরে পত্র পাঠানাে

হয়ছে।ে কমশিন সচবিালয়রে সচবি মো. শাহজাহান আলী মোল্লা স্বাক্ষরতি ঐ পত্রে

মতামত প্রদান করে বলা হয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও কমশিনরে পত্ররে

প্রক্ষেতিে জানানাে যাচ্ছে য,ে মো. আলমগীর হোসনে, সাবকে সনিয়ির সহকারী

পুলশি সুপার, কুলাউড়া র্সাকলে, মৗেলভীবাজার র্বতমানে সনিয়ির সহকারী পুলশি

কমশিনার,

ডএিমপ-িএর বরিুদ্ধে সরকারি র্কমচারী (শৃংখলা ও আপলি) বধিমিালা, ১৯৮৫ এর

৩(এ) ও ৩(ব)ি বধিরি আওতায়  অদক্ষতা ও অসদাচরণ-এর অভযিোগ প্রমাণতি হওয়ায় একই

বধিমিালার ৪(৩)(ড)ি বধিমিোতাবকে 'চাকুরী হতে বরখাস্ত' (উরংসরংধষ ভৎড়স

ংবৎারপব) দন্ড প্রদানরে বষিয়ে প্রশাসনকি মন্ত্রণালয়রে প্রস্তাবরে সাথে

কমশিন একমত পোষণ করছে।ে এমতাবস্থায় কমশিনরে মতামতরে প্রক্ষেতিে গৃহীত

ব্যবস্থা সর্ম্পকে কমশিন সচবিালয়কে অবহতি করতঅেনুরোধ করা হলাে।

জানা গছে,ে সনিয়ির সহকারী পুলশি সুপার আলমগীর হোসনেরে বরিুদ্ধে অভযিোগরে

যনে শষে নাই। স্বামীকে থানায় আটকে রখেে তার স্ত্রীকে থানার ভতের র্ধষণ

করার অভযিোগও রয়ছেে তার বরিুদ্ধ।ে আর এর প্রতবিাদ করলে ঐ ব্যক্তি এবং তার

স্ত্রীর বরিুদ্ধে ডাকাতি মামলা দয়িে জলে খাটায় আলমগীর হোসনে। এখানইে শষে

নয়,জনিাইদাহ কালগিঞ্জ উপজলোর মুক্তি যোদ্ধার সন্তান  ইমন নামরে ঐ

ব্যক্তি কছিুদনি জলে খটেে জামনিে বরে হয়ে আসার পর বষিয়টি নয়িে পুলশিরে

র্ঊধ্বতন র্কমর্কতাদরে সাথে দখো করতে চাইলে ইমনকে আটকে রখেে তার দুই

চােখে কলম দয়িে খুঁচয়িে রক্ত বরে করে দয়িে চুন ও সুপারগ্লু দয়িে এ এস পি

আলামগীর চরিদনিরে জন্য অন্ধ করে দয়ে তার দুটি চোখ শুধু অন্ধ করইে খ্যান্ত

হয়নি একই সময় তার বরিুদ্ধে ৭ টি ডাকাতরি পুরাতন মামলা দয়িে জলে হাজতে

পাঠায়।

পুলশি সদর দপ্তররে তদন্ত প্রতবিদেনে দখো যায়, সাধারণ মানুষরে সঙ্গে

প্রতারণা, মথ্যিা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা-মোকদ্দমায় জড়ানো, পুলশি র্কমর্কতা

হয়ে সত্য গোপন করে মনগড়া তথ্যে মামলা তরৈ,ি শৃঙ্খলা পরপিন্থি গুরুতর

অসদাচরণ, পুলশি বভিাগরে ভাবর্মূতি ক্ষুণ করা, অভযিোগকারীর সঙ্গে অনতৈকি

স¤র্পকে জড়ানো, র্দুনীতকিে প্রশ্রয় দয়ো-এরকম নানা অভযিোগ তার বরিুদ্ধ।ে

বভিাগীয় মামলার তদন্তে তা প্রমাণতি হওয়ায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় র্কতৃক

গৃহীত সদ্ধিান্ত মোতাবকে অভযিুক্ত র্কমর্কতা আলমগীর হোসনে  এর বরিুদ্ধে

সরকারী র্কমচারী (শৃংখলা ও আপলি) বধিমিালা ১৯৮৫ এর ৭ (৬) এবং ৪(৩) (ড)ি

বধিি মোতাবকে চাকুরী হতে বরখাস্ত(উরংসরংধষ ভৎড়স ংবৎারপব) করার জন্য

র্কমকমশিন সচবিকে গত ১৬.০৪. ২০১৫ ইং তারখিে দন্ড প্রদানরে নর্দিশে দনে।

র্দীঘ তনি বছর অতবিাহতি হওয়ার পরও তার গায়রে পশম কউে নাড়াতে পারনে।ি বহাল

তবয়িতে আছনে র্কমস্থল।ে তার নাম মোঃ আলমগীর হোসনে। তনিি সলিটে রঞ্জেরে

মৌলভীবাজার জলোর কুলাউড়া র্সাকলেরে সনিয়ির সহকারী পুলশি সুপার-এএসপি

হসিাবে র্কমরত থাকাকালীন সময়ে বভিন্নি অপর্কম করে র্বতমানে সনিয়ির সহকারী

পুলশি কমশিনার ডএিমপি ঢাকায় বহাল আছনে । অভযিোগ প্রমাণতি হওয়ার পরও তার

সঙ্গে ধরা ছোঁয়ার বাইরে আছনে পুলশিরে অপর ৫ র্কমর্কতা। তাদরে মধ্যে

রয়ছেনে ১ ওসি ও ৪ এস আই, এর মধ্যে ও সি আবু জাফর মোহাম্মাদ সালহে আছনে

ফনেী জলোর সনাগাজী থানায়, এস আই বদরুল হাসান কে উল্টা পদোন্নতি দয়িে ও

সি (তদন্ত)কমলগঞ্জ থানায় দায়ত্বি দওেয়া হয়, যা অভযিোগকারী ব্যবসায়ী

সজীবরে মফঃস্বলরে বাড়রি থানা এলাকা, এস আই আব্দুল লতফি তরফদার আছনে

সুনামগঞ্জ সদর থানায়, এস আই আব্দুল্লাহ আল হাসান আছনে ঢাকা দক্ষনি খান

থানায়, এস আই নজরুল ইসলাম আছনে মৌলভীবাজার ডি বি র্কাযালয়।েবভিাগীয়

মামলার তদন্তে গুরুতর অভযিোগ প্রমান হওার পরও তাদরে বরিুদ্ধে কোন ববেস্থা

নয়েনি করতপিক্ষ। গত প্রায় ৩ বছর ধরে ধাপটরে সঙ্গে তারা রাজত্ব চালয়িে

যাচ্ছনে। তবে র্কমস্থল থকেে বরখাস্ত হয়ছেনে তার মূল সহযোগী পরবিার

পরকিল্পনা বভিাগরে র্কমর্কতা ডা. রাজয়িা সুলতানা। অসংখ্য অপর্কমরে পরও সে

মৌলভীবাজার জলো থকেে না যাওয়ায় স্থানীয়দরে মাঝে রয়ছেে অত্যন্ত ক্ষোভ ও

কানাঘুষা । শোনা যাচ্ছ,ে বড় অংকরে লনেদনেরে কল্যাণইে সহযোগী নয়িে তনিি

বহাল থাকতে চষ্টো করওে পার পান ন।ি

এদকিে যে ব্যক্তরি অভযিোগরে প্রক্ষেতিে তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হয়ছেনে

এএসপি আলমগীর সইে অভযিোগকারী ব্যবসায়ী মোঃ সাইফুল ইসলাম সজীবকে এখনো

বভিন্নি মথ্যিা মামলা দয়িা হয়রানী করে যাচ্ছ।ে সাজানো অভযিোগে এর আগে

জলেও খটেছেনে তনি।ি এখন এএসপরি মামলায় জড়ানো, অস্ত্র দয়িে ধরয়িে দয়োসহ

নানা রকম হুমক-িধমকতিে নরিাপত্তাহীন হয়ে পড়ছেনে সজীব। নজিরে জীবনরে

নরিাপত্তা চয়েে সজীব রাজধানীর রামপুরা থানায় ২ টি জডিি এন্ট্রওি করছেনে।

এএসপি আলমগীররে বরিুদ্দ।ে এদকিে ২০১২ সালরে নভম্বের ও ডসিম্বেরে

আলামগীররে বরিুদ্দে ২টি এবং ২০১৩ সালরে জানুয়ারি মাসে অপর একটসিহ ৩টি

অভযিোগ আসে পুলশিরে হডেকোর্য়াটার।ে এগুলো প্রধানমন্ত্রীর র্কাযালয়,

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং স্বরাষ্ট্র সচবি বরাবরও পাঠানো হয়। এর

প্রক্ষেতিে এ এস পি আলমগীররে বরিুদ্ধে আলাদা তদন্তাধীন রয়ছে।ে

 এছাড়াও গত ২১. ১১. ২০১২ ইং তারখিে ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম সজীব

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র সচবি, আই জি প,ি অত:ি ডি আই জ(িসকিউিরটিি

সলে) এ অভযিোগ দায়রে করলিে মন্ত্রণালয়রে নর্দিশেে দুই সদস্য

 

 

 

Rate this item
(0 votes)

সর্বাধিক পঠিত

গোবিন্দগঞ্জে প্রতিপক্ষের

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :: প্রতিপক্ষের হামলায় নারীর গর্ভের

Read more

তৃতীয় উপসাগরীয় যুদ্ধ কি আসন্ন!

পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে তৃতীয় আরেকটি যুদ্ধ কি আসন্ন?

Read more

শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীদের পাওয়া

জেনেভা ক্যাম্পে শীর্ষ ও তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ীদের পাওয়া

Read more

যে আমল করলে আল্লাহর ইচ্ছাতে

যে দোয়ার আমল করলে – নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম

Read more

কুরআন বুঝার চেষ্টা করি।

পৃথিবীতে সবচেয়ে পরিশ্রমী পতঙ্গ হলো পিঁপড়া। তারপরে কে?

Read more

JPL DOOR & FURNITURE IND.

প্রতিষ্ঠিত ফার্নিচার কোম্পানীর জন্য দুইজন সচ্ছল

Read more

JPL DOOR & FURNITURE IND.

সমকামী নাটক প্রচার করে তোপের

 

 

 

ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে সমকামীদের অধিকার নিয়ে মোবাইল

Read more

ব্রেকিং নিউজঃ- নিন্দা ও

ব্রেকিং নিউজঃ- নিন্দা ও একাত্ততা প্রকাশ।

Read more